অনলাইন ডেস্ক 19

ইইউ শরণার্থী আইন পাস: ৩ মাসে আবেদন নিষ্পত্তি, ব্যর্থ হলে দেশে ফেরত

অনলাইন ডেস্ক : চলতি বছরের জুনে হওয়ার কথা ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সংসদ নির্বাচন। এর আগেই নিজের ঘর গোছালো মধ্য ডানপন্থী ইউরোপিয়ান পিপলস পার্টি (ইপিপি) গ্রুপ এবং মধ্য বামপন্থী প্রগ্রেসিভ অ্যালায়েন্স অব সোশ্যালিস্ট অ্যান্ড ডেমোক্র্যাটস (এসঅ্যান্ডডি)। যারা কাজ করছে ২৭ দেশের জোট তথা ইইউ’র নতুন অভিবাসন ও শরণার্থী নীতি বা আইন নিয়ে। দুই দিন আগেই সেই প্রস্তাব পাস হলো।

 

বলা হচ্ছে, আগামী জুনে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে এই দুটি দলই বড় চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেবে বলে মনে করা হচ্ছে। যার অন্যতম শক্তি হতে পারে নতুন শরণার্থী ও অভিবাসন আইন। এর মধ্য দিয়ে অঞ্চলটির দেশগুলোতে অভিবাসী ও শরণার্থী হিসেবে তৃতীয় কোনো দেশ থেকে যাওয়ার ক্ষেত্রে কঠোর নীতিমালার মুখোমুখি হতে হবে।

 

বিবিসি বলছে, ২০১৫ সাল থেকে ইইউভুক্ত দেশগুলো অভিন্ন অভিবাসন ও শরণার্থী নীতি গ্রহণ নিয়ে কাজ শুরু করে। অঞ্চলটির কিছু দেশ নিজেদের সীমান্তের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশের প্রেক্ষাপটে বিষয়টি সামনে আসে। অবশেষে দীর্ঘ আলোচনার পর এই সম্পর্কিত নীতির প্রস্তাবটি ইউরোপীয় পার্লামেন্টে পাস হলো। এই নীতি আগামী দুই বছর সময়ের মধ্যে কার্যকর করা হবে।

 

এই নীতির মধ্য দিয়ে ইউরোপীয় দেশগুলোতে শরণার্থী গ্রহণ প্রক্রিয়ার গতি বাড়বে। পাশাপাশি অবৈধ বলে বিবেচিত অভিবাসীদের নিজ নিজ দেশেও দ্রুততার সঙ্গে ফেরত পাঠানো সম্ভব হবে। একইসঙ্গে শরণার্থী গ্রহণের ক্ষেত্রে অঞ্চলটির দেশগুলোকে আলাদাভাবে দায়িত্ব নিতে হবে।

 

বিবিসির দেয়া তথ্যমতে, গত বছর ইইউ সীমান্ত পার হয়ে অঞ্চলটিতে প্রবেশ করে ৩ লাখ ৮০ হাজার অবৈধ অভিবাসী। ২০১৬ সালের পর এই সংখ্যাই সর্বোচ্চ। ২০২৩ সালে বাংলাদেশিরাও সর্বোচ্চ আবেদন করেছেন রাজনৈতিক আশ্রয়ের। সংখ্যাটা প্রায় ৪০ হাজার।

 

কি আছে নতুন আইনে? ইইউভুক্ত দেশগুলোকে এই নীতি মেনে চলার বিষয়ে আবশ্যিক ঐক্য প্রদর্শন করতে হবে। প্রস্তাবিত নীতিতে বলা হয়েছে, ইউরোপের প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত ইতালি, গ্রিস, স্পেনের মতো দেশগুলোতে প্রবেশ করা শরণার্থীদের অন্য দেশগুলো হয় ভাগ করে নিতে অথবা সেই সব শরণার্থীর ব্যয় নির্বাহের জন্য তহবিলের ব্যবস্থা করতে হবে। অর্থাৎ, শরণার্থী বিষয়ক দায় শুধু আর এই কয়েকটি দেশের ঘাড়ে থাকবে না। ইইউভুক্ত ২৭টি দেশকেই তা নিতে হবে।

 

একইসঙ্গে বলা হয়েছে, শরণার্থী হিসেবে গ্রহণের সুযোগ কম—এমন ব্যক্তিদের বিষয়ে দ্রুততার সঙ্গে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এক্ষেত্রে শরণার্থী হতে আবেদন করা ব্যক্তিকে- এমনকি ইউরোপে প্রবেশের আগেই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পাশাপাশি যেকোনো আশ্রয় আবেদন ১২ সপ্তাহের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হবে। আশ্রয় আবেদন বাতিল হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে একই সময়ের মধ্যে জোরপূর্বক তার নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে হবে।

 

শুধু শরণার্থী নয়, ইউরোপে অভিবাসী হতেও বড় ধরনের যাচাই–বাছাইয়ের মুখোমুখি হতে হবে। প্রস্তাবিত নীতিটি পাস হলে সাত দিনের মধ্যে অভিবাসন আবেদনের নিষ্পত্তি করতে হবে। সেক্ষেত্রে ইইউ অঞ্চলে প্রবেশের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে বাড়তি যাচাই–বাছাইয়ের মুখোমুখি হতে হবে। এর মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা ও পরিচয়–সংক্রান্ত বিষয়াদি। ছয় বছর বা তদূর্ধ্ব বয়সীদের ক্ষেত্রে বায়োমেট্রিক ডেটা পরীক্ষা করা হবে। এই ধরনের অভিবাসীর সংখ্যা বেড়ে গেলে তা মোকাবিলায়ও ব্যবস্তা গ্রহণ করা হবে।

 

নতুন অভিবাসন নীতিকে স্বাগত জানিয়ে দেয়া বক্তব্যে জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শুলজ একে ‘ঐতিহাসিক’ আখ্যা দিয়েছেন। আর ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রেসিডেন্ট রবার্তা মেতোসলা ‘ঐক্য ও দায়বোধের মধ্যে ভারসাম্য’ বলে আখ্যায়িত করেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

নেতানিয়াহু-গ্যালান্ত ও হামাসের ৩ নেতাকে গ্রেপ্তারের আবেদন
নেতানিয়াহু-গ্যালান্ত ও হামাসের ৩ নেতাকে গ্রেপ্তারের আবেদন

নেতানিয়াহু-গ্যালান্ত ও হামাসের ৩ নেতাকে গ্রেপ্তারের আবেদন

রাইসির হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় আমরা জড়িত নই: ইসরায়েলি কর্মকর্তা
রাইসির হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় আমরা জড়িত নই: ইসরায়েলি কর্মকর্তা

রাইসির হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় আমরা জড়িত নই: ইসরায়েলি কর্মকর্তা

ফুসফুসে প্রদাহ, চিকিৎসা নিচ্ছেন সৌদি বাদশাহ
ফুসফুসে প্রদাহ, চিকিৎসা নিচ্ছেন সৌদি বাদশাহ

ফুসফুসে প্রদাহ, চিকিৎসা নিচ্ছেন সৌদি বাদশাহ

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি নিহতের ঘটনায় ইরানে পাঁচ দিনের শোক
ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি নিহতের ঘটনায় ইরানে পাঁচ দিনের শোক

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি নিহতের ঘটনায় ইরানে পাঁচ দিনের শোক

সন্ধান মিলেছে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারের
সন্ধান মিলেছে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারের

সন্ধান মিলেছে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারের

রাইসির মৃত্যু হলে ইরানের দায়িত্ব নেবেন যিনি
রাইসির মৃত্যু হলে ইরানের দায়িত্ব নেবেন যিনি

রাইসির মৃত্যু হলে ইরানের দায়িত্ব নেবেন যিনি

ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, খোঁজ নেই রাইসির
ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, খোঁজ নেই রাইসির

ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, খোঁজ নেই রাইসির

‘প্রতিকূল’ ফ্রান্স ছাড়ছেন মেধাবী মুসলিম পেশাজীবীরা
‘প্রতিকূল’ ফ্রান্স ছাড়ছেন মেধাবী মুসলিম পেশাজীবীরা

‘প্রতিকূল’ ফ্রান্স ছাড়ছেন মেধাবী মুসলিম পেশাজীবীরা

মোদির ভারতে মুসলিমরা নিজভূমে পরবাসী
মোদির ভারতে মুসলিমরা নিজভূমে পরবাসী

মোদির ভারতে মুসলিমরা নিজভূমে পরবাসী

কিরগিজস্তানে হামলা আতঙ্কে হাজারের বেশি বাংলাদেশি শিক্ষার্থী
কিরগিজস্তানে হামলা আতঙ্কে হাজারের বেশি বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

কিরগিজস্তানে হামলা আতঙ্কে হাজারের বেশি বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

সৌদিতে প্রথমবারের মতো হলো নারীদের সুইমশ্যুট ফ্যাশন শো
সৌদিতে প্রথমবারের মতো হলো নারীদের সুইমশ্যুট ফ্যাশন শো

সৌদিতে প্রথমবারের মতো হলো নারীদের সুইমশ্যুট ফ্যাশন শো

দীর্ঘমেয়াদী যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হামাস, ভয়াবহ আঘাতের মুখে ইসরাইল
দীর্ঘমেয়াদী যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হামাস, ভয়াবহ আঘাতের মুখে ইসরাইল

দীর্ঘমেয়াদী যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হামাস, ভয়াবহ আঘাতের মুখে ইসরাইল

close