অনলাইন ডেস্ক 189

শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

পৌষের শীতের প্রকোপের প্রভাবটা জেঁকে বসেছে দেশের উত্তর জনপদে। এমনিতেই শীতকাল তারপর হিমালয় পর্বত কাছে হওয়ার কারণে এখানে প্রতি বছর জনজীবনে আঘাত হানে শীত। এবার পৌষের শুরুতেই দেশের বিভিন্ন স্থানে জেঁকে বসেছে শীত। একই সঙ্গে উত্তর জনপদে এই শীত জেঁকে বসেছে। মানুষ শীতে নিদারুণ কষ্টটা পেতে শুরু করেছে পৌষের শুরু থেকেই। গত শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে শৈত্যপ্রবাহ। এ সময় খোলা আকাশের নিচে কাজ করতে ভীষণ কষ্টসাধ্য হয় শ্রমজীবীদের জন্য।

হিমশীতল বাতাস বইতে থাকে, দিনের বেলা কখনো সূর্যের দেখা মেলে, কখনো মেলে না। যখন আকাশে সূর্য থাকে, তখনো রোদের তীব্রতা থাকে না। রাতে বেশ ঘন হয়ে প্রায় বৃষ্টির মতো ঝরে শিশির। ঘন কুয়াশা ও তীব্র ঠাণ্ডায় শীতের তীব্রতায় জনজীবন অনেকটা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। শীতবস্ত্র বা গরম কাপড়ের অভাবে প্রান্তিক জনপদে শীতার্ত মানুষ খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। পৌষ মাসের আজ ১৯ তারিখ। অব্যাহত তীব্র শৈত্যপ্রবাহে কাজে বের হতে পারছে না নিম্ন আয়ের মানুষ। খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না কেউ। তবে তারা পড়েছেন বেশ বেকায়দায়। হাড় কাঁপানো কনকনে শীতে বিপর্যন্ত বেশি উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোর গ্রামীণ মানুষের জীবনযাত্রা। বিশেষ করে তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র নদের চরাঞ্চলের মানুষের অবস্থা করুণ। হিমশীতল বাতাসে শীতবস্ত্র না থাকায় মানুষ পড়েছে বিপর্যস্তকর অবস্থায়। জেলা শহরগুলোতে ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। প্রচণ্ড শীতে কোথাও শীতবস্ত্র বিতরণ করতে দেখা যাচ্ছে না। ঘন কুয়াশার মধ্যে মহাসড়কগুলোতে হেডলাইট জ্বালিয়ে ধীরগতিতে যান চলাচল করছে। শীতে হাসপাতালগুলোতে বাড়ছে শিশু ও বৃদ্ধ রোগীর সংখ্যা।

এছাড়া রাজধানীসহ দেশের বড় শহরগুলোতেও শীত বাড়তে শুরু করেছে। অন্যদিকে শীত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশের বেশিরভাগ এলাকায় কুয়াশাও বাড়ছে। অনেক এলাকায় ঘন কুয়াশা দুপুর পর্যন্ত গড়াচ্ছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, আগামী কয়েকদিন এই শৈত্যপ্রবাহ আর কুয়াশা থাকবে। বিশেষ করে নদীতীরবর্তী এলাকাগুলোতে কুয়াশার পরিমাণ ছিল বেশি। অনেক এলাকায় দুপুরে কিছুটা রোদ দেখা যাওয়ার পর বিকেল গড়াতে কুয়াশার চাদর আবারও ফিরে এসেছে। চলতি শীত মৌসুমে প্রথমবারের মতো মৃদু শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে। জেলার তেঁতুলিয়ায় টানা তিনদিন ধরে সারা দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। গত বছরের একই দিনে (২০২২ সালের ১ জানুয়ারি) তেঁতুলিয়ায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

গত রবিবার কুড়িগ্রাম জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামে শীতের দাপট বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালগুলোতে শীতজনিত রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে। কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল সূত্রের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে, শীতজনিত বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে গত রবিবার হাসপাতালে ৩৩৬ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া শিশু ও ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ৮২ জন চিকিৎসাধীন রয়েছে। মৃদু শৈত্যপ্রবাহের কবলে পড়েছে উত্তরের জেলা নীলফামারী। শনিবার সকালে সর্বনিম্ন ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অফিস, যা এই মৌসুমে নীলফামারী জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। নওগাঁর পত্নীতলাসহ আশপাশের উপজেলা গত তিনদিন ধরে বয়ে চলেছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। নওগাঁ জেলা উত্তরের সীমান্ত এলাকায় অবস্থিত হওয়ার কারণে হিমালয় থেকে বয়ে আসা হিমেল হাওয়ায় সর্বশ্রেণি পেশার মানুষ পড়েছে চরম বেকায়দায়।

বিশেষ করে ছিন্নমূল মানুষ এবং অতি দরিদ্র ও প্রান্তিক পরিবারের প্রবীণ ও শিশুরা পড়েছে চরম বেকায়দায়। শীত নিবারণের প্রয়োজনীয় গরম কাপড় না থাকায় তারা ফুটপাতের দোকানে ভিড় করছে। সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের এ ব্যাপারে যেমন দৃষ্টি দেয়া প্রয়োজন তেমনি সমাজের বিত্তবান শ্রেণি, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের উচিত গরম কাপড়, খাবার, ওষুধ নিয়ে শীতে বিপর্যস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো। সবার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় মানুষ শীতের প্রকোপ থেকে মুক্তি পাক- এ প্রত্যাশা উত্তর জনপদের শীতার্ত মানুষের সঙ্গে আমাদেরও।

এই বিভাগের আরও খবর

বাবা চলে যাবার আজ তিন বছর
বাবা চলে যাবার আজ তিন বছর

বাবা চলে যাবার আজ তিন বছর

তারুণ্যের অহংকার সৈয়দ মেহেদী রাসেল
তারুণ্যের অহংকার সৈয়দ মেহেদী রাসেল

তারুণ্যের অহংকার সৈয়দ মেহেদী রাসেল

রমজানকে সামনে রেখে নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি
রমজানকে সামনে রেখে নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি

রমজানকে সামনে রেখে নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি

ধনী-গরিবের বৈষম্য কমিয়ে আনা জরুরি
ধনী-গরিবের বৈষম্য কমিয়ে আনা জরুরি

ধনী-গরিবের বৈষম্য কমিয়ে আনা জরুরি

শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান
শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ান

বাজারে ভোক্তাদের নাভিশ্বাস
বাজারে ভোক্তাদের নাভিশ্বাস

বাজারে ভোক্তাদের নাভিশ্বাস

close